dailysylheter somoy

মে ২৫, ২০২১

সাংবাদিক রোজিনার কারাবাস আমাদের কী বার্তা দিল

সাংবাদিক রোজিনার কারাবাস আমাদের কী বার্তা দিল

১২ এপ্রিল ২০২১ তারিখে প্রথম আলোয় প্রকাশিত সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের লেখা ‘এখন এক কোটি দেব, পরে আরও পাবেন’ শীর্ষক প্রতিবেদনটি পড়ে তাৎক্ষণিকভাবে মনে হয়েছিল, এমন চমৎকার অনুসন্ধানী প্রতিবেদন আমি বহুদিন পড়িনি। ভাবলাম, আমাদের দেশে যদি যুক্তরাষ্ট্রের পুলিৎজারের মতো কোনো পুরস্কার থাকত, তাহলে নিশ্চয়ই এই প্রতিবেদন সেটি পেত। মনস্থির করেছিলাম, প্রতিবেদনটির দিকে কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের সহকর্মীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করব, যাতে তারা বুঝতে পারে, আমাদের দেশের সাংবাদিকেরাও এখন কত উঁচু মানসম্পন্ন অনুসন্ধানী প্রতিবেদন করতে পারেন।

রোজিনা ইসলামের প্রতিবেদনটি আমার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিল তাঁর পেশাদারি দক্ষতার কারণে। তথ্যসংবলিত বস্তুনিষ্ঠ লেখাটিতে তিনি যাঁরা দুর্নীতির অভিযোগ এনেছেন এবং যাঁরা অভিযুক্ত হয়েছেন—দুই দলের বক্তব্যই প্রকাশ করেছেন। প্রতিবেদনটি পড়ে আমার মনে সরকার সম্পর্কে কিংবা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কে ঢালাও কোনো নেতিবাচক ধারণা সৃষ্টি হয়নি; বরং আমার মনে যা দাগ কেটেছিল, তা হলো স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে দুর্নীতি হচ্ছে, তবে এই মন্ত্রণালয়ে এখনো অনেক সৎ কর্মকর্তা আছেন, যাঁরা কোটি টাকার প্রলোভন প্রত্যাখ্যান করেছেন এবং সাহস নিয়ে দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আবেদন করেছেন। তাঁদের আবেদনের কিছু ফলও হয়েছে। দুর্নীতিবাজদের বদলি করা হয়েছে। প্রতিবেদনটি পড়ে আমি এ জন্য কিছুটা আশ্বস্ত হতে পেরেছিলাম যে আমাদের দেশে কিছু দুর্নীতিবাজ থাকতে পারেন, পাশাপাশি এখনো অনেক সৎ কর্মকর্তা আছেন। আর হয়তো তাঁদের জন্যই দেশটা এগিয়ে যাচ্ছে।

এর দুই সপ্তাহ পরে ১৭ মে রাতে টেলিভিশনের সংবাদে দেখলাম, যে সাংবাদিককে আমি তাঁর দক্ষতা ও সাহসিকতার জন্য মনে মনে পুলিৎজার পুরস্কার দিতে চেয়েছিলাম, তিনিই পাঁচ–ছয় ঘণ্টা ধরে লাঞ্ছিত হয়েছেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে, তারপর তিনি সারা রাত কাটিয়েছেন শাহবাগ থানায়, তাঁর বিরুদ্ধে মামলাও হয়েছে। পরদিন তাঁকে নেওয়া হলো আদালতে, এরপর পাঠানো হলো কারাগারে এবং এর পরের দিন শুনানির পরও তাঁকে জামিন দেওয়া হলো না। তাঁর বিরুদ্ধে ডিবির তদন্ত শুরু হলো। আমি স্তম্ভিত হয়ে পড়লাম। বুঝতে পারছিলাম না, দেশে আসলে এসব কী হচ্ছে। যে সাংবাদিক বহু কষ্ট করে দুর্নীতির খবর প্রকাশ করেছেন, তিনি কেন রাষ্ট্র কর্তৃক পুরস্কৃত না হয়ে জামিন না পেয়ে কারাবাস করছেন?

রোজিনা ইসলামের সঙ্গে আমার পরিচয় নেই। তাঁর সম্পর্কে গবেষণা করে দেখলাম, তিনি এর আগেও এ ধরনের বেশ কয়েকটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন করেছেন, যেগুলোর মাধ্যমে তিনি কয়েকটি মন্ত্রণালয়ের দুর্নীতির ঘটনা উন্মোচন করেছেন। প্রতিটি প্রতিবেদনেই তিনি পরিচয় দিয়েছেন পেশাদারি দক্ষতার। পেয়েছেন বেশ কয়েকটি দেশীয় ও আন্তর্জাতিক পুরস্কার।

রোজিনা ইসলামের যেসব প্রতিবেদন আমি পড়েছি, তাতে দেখেছি, তিনি বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের ভেতর থেকেই খবর সংগ্রহ করেছেন। খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে বিশেষ করে নারী সাংবাদিক হিসেবে তাঁকে কত প্রতিকূলতা পার হতে হয়েছে, সেগুলোর বিবরণ আছে ১৪ নভেম্বর ২০১৪ সালের একটি লেখায়, যার নাম ‘অনুসন্ধান: খুঁড়তে খুঁড়তে গরম খবর’। তিনি কেমন করে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দুটি চাঞ্চল্যকর দুর্নীতির তথ্য সংগ্রহ করেছিলেন, লেখাটিতে সেই বিবরণ আছে। অনুসন্ধানী সাংবাদিকদের কাজ কত কঠিন এবং এসব প্রতিবেদন সংবাদপত্রের সম্পাদকেরা কত খুঁটিয়ে পর্যবেক্ষণ করে তারপর প্রকাশ করেন, তাঁর স্বচ্ছ বিবরণ আছে এই লেখায়। আমাদের দেশে অনুসন্ধানী সাংবাদিকের সংখ্যা সীমিত। আরও বেশি সীমিত সে ধরনের সংবাদপত্র, যারা অনুসন্ধানী প্রতিবেদন নিয়মিতভাবে বহু বছর ধরে প্রকাশ করে আসছে। প্রথম আলোর বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, এই সংবাদপত্র বহু বছর ধরে উচ্চমানের অনুসন্ধানী প্রতিবেদন করছে। সংগত কারণেই এটি হতে পেরেছে দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদপত্র।

১৯৭০–এর দশকে যখন নির্বাচন নিয়ে গবেষণা করছিলাম, তখন এক সরকারি কর্মকর্তা বলেছিলেন যে আমার বিরুদ্ধে পুলিশের এক লম্বা অভিযোগের নথি তাঁর কাছে এসেছিল। এর কোনো মূল্য নেই বলে তিনি সেটা বিবেচনায় নেননি। আমাকে তিনি জানানোর প্রয়োজনও বোধ করেননি। সম্প্রতি নির্বাচন কমিশনের কাছ থেকে তথ্য চেয়েও আমার মিশ্র অভিজ্ঞতা হয়েছে। একই ধরনের তথ্য এক কমিশনার আমাকে দিয়েছেন, কিন্তু পরবর্তী কমিশনার আমাকে দেননি। এতে আমার গবেষণা ব্যাহত হয়েছে। পরে দেখেছি, অন্য গবেষক অন্য সূত্র থেকে সেই তথ্য পেয়েছেন। অতএব সরকারি কর্মকর্তারা অনেক সময় নিজ বিবেচনায় ঠিক করেন, কোন তথ্য প্রকাশ করলে জনস্বার্থ বা দেশের স্বার্থ ক্ষুণ্ন হবে।

আজ (২৩ মে) রোজিনা ইসলামের জামিনের খবর পেয়ে কিছুটা স্বস্তি পেলাম। আশা করব, তাঁর বিরুদ্ধে যে মামলা করা হয়েছে, তা দ্রুত প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে, যাতে মামলার খড়্গ অনিশ্চিতকালের জন্য তাঁর মাথার ওপর ঝুলিয়ে রাখা না হয়, এখনো অনেক সম্পাদক বা সাংবাদিকের মাথার ওপরে যেমন আছে।

আদালত মন্তব্য করেছেন, ‘অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বশীল আচরণ করার ক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করে সংবাদপত্র।’ এই মন্তব্যকে আমি একটি ইতিবাচক বার্তা হিসেবে দেখছি। অবশ্যই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে রোজিনা ইসলামকে পাঁচ–ছয় ঘণ্টা আটকে রাখা এবং পরবর্তীকালে তাঁর কারাবাস একটি ভিন্ন বার্তা মানুষের কাছে পৌঁছে দিয়েছে। তাঁকে সহায়কের ভূমিকায় দেখা হয়নি। যে সাংবাদিক সম্প্রতি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কয়েকটি দুর্নীতি ও অনিয়মের ঘটনা উন্মোচন করেছেন, তাঁকে যদি সেই মন্ত্রণালয়ে তথ্য চুরির অপরাধে আটকে রাখা হয়, তখন জনসাধারণ স্বাভাবিকভাবেই মনে করতে পারে যে তিনি নিশ্চয়ই ১৭ মে আরও কিছু অনিয়মের তথ্য সংগ্রহ করছিলেন।

যে সাংবাদিক বহু বছর ধরে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের অনিয়ম ও দুর্নীতির খবর প্রকাশ করছেন, তাঁকে পেশাদারি কর্তব্য পালনের সময় আটকে রাখা, কারাগারে পাঠানো সরকারের দুর্নীতির বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ বার্তার বিপক্ষে একটি অবস্থান।

সরকারের সব কর্মকর্তাকে বুঝতে হবে যে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি বাস্তবায়ন করতে হলে তাঁদের প্রয়োজন অনুসন্ধানী সাংবাদিক। শুধু সরকারি চ্যানেলের মাধ্যমে তাঁরা দুর্নীতি ও অনিয়মের সংবাদ পাবেন না; কারণ, এসব তথ্য গোপন করাটাই সরকারি কর্মকর্তাদের বহুদিনের ধারা। তথ্যপ্রবাহ যতটা স্বচ্ছ ও উন্মুক্ত করা যায়, ততটাই সুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য মঙ্গল এবং দুর্নীতি দমনে সহায়ক।

কোভিড–১৯ আমাদের সবার মনে একটি অনিশ্চয়তার ছায়া এনে দিয়েছে। এই সময়ে সব নাগরিকের মৌলিক অধিকারগুলো সুনিশ্চিত করতে সরকার আরও উদ্যোগী হবে, এটাও আমাদের প্রত্যাশা।

রওনক জাহান: রাষ্ট্রবিজ্ঞানী; সম্মানীয় ফেলো, সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি)

Sharing is caring!


সর্বশেষ সংবাদ

গলায় প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে সংসদে বাঁধ নির্মাণের দাবি এমপি শাহজাদার

গলায় প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে সংসদে বাঁধ নির্মাণের দাবি এমপি শাহজাদার

অনলাইন ডেস্ক সংসদের বৈঠকে গলায় প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে নিজ এলাকায় বাঁধ নির্মাণের দাবি তুলেছেন পটুয়াখালী-৩ আসনের সংসদ সদস্য এস এম শাহজাদা।

শিশু অধিকার বাস্তবায়ন সম্পর্কিত জবাবদিহিতা বিষয়ক সংলাপ অনুষ্ঠিত

শিশু অধিকার বাস্তবায়ন সম্পর্কিত জবাবদিহিতা বিষয়ক সংলাপ অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট সদর উপজেলায় শিশু অধিকার বাস্তবায়ন সম্পর্কিত জবাবদিহিতা বিষয়ক সংলাপ অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রিলায়েন্ট উইমেন ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (আর.

সিলেট জেলা ট্রাক, পিকআপ কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত

সিলেট জেলা ট্রাক, পিকআপ কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট জেলা ট্রাক, পিকআপ, কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের উদ্যোগে গোয়াইনঘাট উপজেলার বিছকান্দি পাথর কোয়ারীতে প্রশাসনের নাম ভাঙ্গিয়ে এবং বিভিন্ন

বিএনপি নেতা ময়নুল হককে হয়রানির নিন্দা জানিয়েছেন জেলা বিএনপির আহবায়ক

বিএনপি নেতা ময়নুল হককে হয়রানির নিন্দা জানিয়েছেন জেলা বিএনপির আহবায়ক

বিএনপি’র জাতীয় নির্বাহী কমিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, সিলেট জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য জননেতা এম. ইলিয়াস আলীর

বিধি-নিষেধের মেয়াদ বাড়ল এক মাস

বিধি-নিষেধের মেয়াদ বাড়ল এক মাস

অনলাইন ডেস্ক করোনাভাইরাস সংক্রমণ বাড়তে থাকায় সারা দেশে চলমান বিধি-নিষেধের মেয়াদ এক ধাক্কায় এক মাস বাড়িয়েছে সরকার। তবে স্বাস্থ্যবিধি মানার

গণমাধ্যমকে সহায়তা দেয়ার মাধ্যমে মত প্রকাশের স্বাধীনতা সমুন্নত রেখেছে সরকার

গণমাধ্যমকে সহায়তা দেয়ার মাধ্যমে মত প্রকাশের স্বাধীনতা সমুন্নত রেখেছে সরকার

অনলাইন ডেস্ক: জাতীয় সংসদে দেয়া এক বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশের গণমাধ্যমকে সবধরনের সহায়তা দেয়ার মাধ্যমে মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে

একদিনে আরও ৬০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩৯৫৬

একদিনে আরও ৬০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩৯৫৬

অনলাইন ডেস্ক দেশে মৃত্যু ও শনাক্ত দুটোই বেড়েছে। একদিনে শনাক্তের হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৬ দশমিক ৬২ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায়

বঙ্গভ্যাক্স ও চীন-ভারতের টিকা ট্রায়ালের জন্য শর্ত

বঙ্গভ্যাক্স ও চীন-ভারতের টিকা ট্রায়ালের জন্য শর্ত

অনলাইন ডেস্ক দেশীয় প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক উদ্ভাবিত করোনার টিকা “বঙ্গভ্যাক্স’ মানবদেহে পরীক্ষামুলক প্রয়োগের অনুমতি দিতে আরো কিছু বিষয় জানতে চেয়েছে

shares